ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ বাংলাদেশ পুলিশের একটি বিশেষায়িত ইউনিট। শিল্প এলাকায় অস্থিতিশীলতাসহ প্রতিরোধ কল্পে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ পূর্বক সম্ভাব্য শ্রম অসন্তোষ মোকাবেলার উদ্দেশ্যে ২০১০ সালের ৩১ শে অক্টোবর শিল্প পুলিশ যাত্রা শুরু করে। বাংলাদেশ পুলিশের একজন অতিরিক্ত আইজিপি পদমর্যাদার কর্মকর্তা শিল্পাঞ্চল পুলিশের প্রধান হিসেবে কাজ করেন।

২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে শিল্প পুলিশ গঠনের পরিকল্পনা ঘোষণা করেন। ২০১০ সালের ৩১ অক্টোবর আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে শিল্পাঞ্চল পুলিশ। দেশের শিল্প খাতের স্বাভাবিক কর্মপরিবেশ বজায় রাখা, সম্ভাব্য নৈরাজ্য নিয়ন্ত্রণ ও সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা প্রদানের লক্ষ্যে এ বিশেষ ইউনিটের যাত্রা শুরু হয়।  বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠানে শ্রমিক অসন্তোষের কারণ, কোনো স্বার্থান্বেষী মহলের ইন্ধন, শ্রমিকদের বেতন নিয়মিত দেওয়া হচ্ছে কি-না সেসব বিষয়ে ইউনিটের গোয়েন্দা ইউনিট আগাম তথ্য সংগ্রহ করে। এছাড়া এ সেক্টরে কর্মরত দেশী বিদেশী বিনিয়োগকারীদের নিরাপত্তা প্রদান, মানিস্কট প্রদান, আগাম গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ, সম্ভাব্য শ্রমিক অসন্তোষ নিরসন করনীয় বিষয়ে ইউনিটের সদস্যরা প্রতিনিয়ত কাজ করে।

শিল্পাঞ্চল পুলিশের ছয়টি কার্য অঞ্চল

  • ইন্ডাস্টিয়াল পুলিশ-১, আশুলিয়া, ঢাকা।
  • ইন্ডাস্টিয়াল পুলিশ-২, গাজীপুর।
  • ইন্ডাস্টিয়াল পুলিশ-৩, চট্টগ্রাম।
  • ইন্ডাস্টিয়াল পুলিশ-৪, নারায়ণগঞ্জ।
  • ইন্ডস্ট্রিয়াল পুলিশ-৫, ময়মনসিংহ ।
  • ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ-৬, খুলনা।